ইয়াবা নিয়ে জলে-জঙ্গলে লুকোচুরি, র‌্যাবের কব্জায় ৩ বোন

0

কক্সবাজার থেকে ইয়াবা নিয়ে চট্টগ্রামে রওয়ানা দিয়েছিল তিন নারী মাদক পাচারকারী। বিষয়টি টের পায় র‌্যাব। র‌্যাব অপেক্ষায় থাকে তাদের ধরার। অপর দিকে মাদক কারবারীদের সোর্সও খবর দেয় তাদের অপেক্ষায় আছে র‌্যাব।

তখনই শুরু হয় লুকোচুরি। কক্সবাজার থেকে বান্দরবান। বান্দরবান থেকে কাপ্তাই হয়ে রাউজানের গহিরা। লক্ষ্য ছিল গহিরা থেকে হাটহাজারী হয়ে চট্টগ্রামে পৌঁছবে। কিন্তু বিধি বাম! র‌্যাব তাদের পিছু ছাড়েনি।

র‌্যাবের চান্দগাঁও কোম্পানীর হাতে ধরা পড়ে তিন নারী মাদক পাচারকারী। তবে এবার তাদের কৌশল ছিল- কচুমুখী সবজির ভেতর বিশেষ কৌশলে ইয়াবা ডুকিয়ে পাচার করা।

আটক তিন মাদক পাচারকারীই কক্সবাজার সদরের রুমালিয়াছড়ার অধিবাসি। একজন হোসেন আহম্মদের স্ত্রী ফাতেমা বেগম মনু, আরেকজন আব্দুর রহিমের স্ত্রী হালিমা বেগম, অপরজন জসিম উদ্দিনের স্ত্রী আসমাউল হুসনা।

তাদের কাছ থেকে ১৮ হাজার ৬০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে হাটহাজারী থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

জানতে চাইলে র‌্যাব-৭এর অধিনায়ক লে, কর্নেল এমএ ইউসুফ চট্টগ্রাম খবরকে বলেন, গ্রেপ্তার এড়াতে এই তিন মাদক পাচারকারী কক্সবাজার থেকে চট্টগ্রাম না এসে প্রথমে বান্দরবান যায়। সেখান থেকে কাপ্তাই। কাপ্তাই থেকে হাটহাজারী হয়ে চট্টগ্রামে আসার পরিকল্পনা ছিল তাদের। কিন্তু গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে তাদের অনুসরণ করে ইয়াবাসহ আটক করেছে।

র‌্যাব-০৭এর চান্দগাঁও কোম্পানী কমান্ডার মেজর মেহেদী হাসান বলেন, বিভিন্ন সময় মাদক পাচারকারীরা ভিন্ন ভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে। এবার তারা বিশেষ কায়দায় কচুমুখী সবজির ভেতরে ডুকিয়ে ইয়াবা পাচার করছিল। জব্দকৃত ইয়াবার মূল্য অর্ধ কোটি টাকার বেশী। আমরা তাদের হাটহাজারী থানায় হস্তান্তর করেছি।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm