কাপ্তাইয়ে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ চলছে

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কাপ্তাই উপজেলার ২২টি ভোটকেন্দ্রে রবিবার (৭ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। চলবে বিকেল ৪ টা পর্যন্ত।

১ নং চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নের তৈয়ুবিয়া সুন্নিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, ৮০ বছর বয়সী উদা খিয়াং নামে একজন ভোটার কেন্দ্রে ভোট দিতে আসছেন। তিনি বলেন, জীবনের শেষ বয়সে এসে ভোট দিতে পেরে আনন্দ লাগছে। সকাল ৯টা ২০ মিনিটে কাপ্তাই বিএফআইডিসি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র গিয়ে দেখা যায়, এখানে মোটামুটি ভোটার উপস্থিতি আছে।

এ সময় কথা হয় ৮৫ বছর বয়সী কাপ্তাই শিল্প এলাকার বাসিন্দা এনামুল হকের সাথে। তিনি ভোট দিতে পেরে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করেন।

অন্যদিকে সকাল ৯টা ৪৫ মিনিট এ গিয়ে কাপ্তাই উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র গিয়ে দেখা যায়, পুরুষ ভোটারের চেয়ে মহিলা ভোটারের উপস্থিতি বেশি।

কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রিজাইডিং অফিসার উপজেলা সহকারী শিক্ষা অফিসার আশীষ কুমার আচার্য বলেন, কোন রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়া সকাল ৮টা হতে ভোট গ্রহন চলছে।

কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তানিয়া আক্তার বলেন, কাপ্তাইয়ের ২২টি ভোটকেন্দ্রে কাজ করছেন ২৪ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ১৩১জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার এবং ২৬২জন পোলিং অফিসার। কাপ্তাই উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ের সূত্র বলছে, চুড়ান্ত ভোটার তালিকা অনুযায়ী কাপ্তাইয়ে মোট ভোটার রয়েছে ৪৮ হাজার ৮৭৫ জন।

এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ২৫ হাজার ৬৯৪ জন এবং মহিলা ভোটার ২৩ হাজার ১৮১ জন। সকাল ১০ টায় যোগাযোগ করা হলে কাপ্তাই সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মুঃ সাইফুল ইসলাম বলেন, কোন রকম সহিংসতা ছাড়া উৎসব মুখর পরিবেশে কাপ্তাইয়ে ভোট গ্রহন চলছে।

কাপ্তাই উপজেলা সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. মহিউদ্দিন বলেন, নির্বাচনকে অবাধ ও সুষ্ঠু করতে কাপ্তাই উপজেলায় ৩ জন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কাজ করছেন। এছাড়া প্রতিটি কেন্দ্রে পুলিশ, আনসার ও ব্যাটালিয়ন আনসার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসাবে সেনাবাহিনী এবং বিজিবির সদস্যরা মাঠে কাজ করছেন। পাশাপাশি পুলিশ এর টহল দল ও সার্বক্ষনিক মাঠে টহল দিচ্ছে।

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।