চবি খুললেও চালু হয়নি ৩ জোড়া শাটল

0

অমিক্রন সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় এক মাস আগে বন্ধ হয়েছিল সশরীরে শ্রেণি কার্যক্রম। একমাসের মাথায় আজ মঙ্গলবার (২২ ফেব্রুয়ারী) পুনরায় চালু হয়েছে সশরীরে শ্রেণি কার্যক্রম।

সশরীরে শ্রেণি কার্যক্রম শুরু হলেও চালু হয়নি লোকো মাস্টারদের কর্মবিরতির সময় বন্ধ হওয়া চবির ৩ জোড়া শাটল।

গত ২৬ জানুয়ারি থেকে মাইলেজ ইস্যুতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে চলাচল করা সাত জোড়া ট্রেনের মধ্যে তিন জোড়া শাটল ট্রেন অনির্দিষ্টকালের জন্য না চালানোর সিদ্ধান্ত নেয় রেল কর্তৃপক্ষ। এর প্রেক্ষিতে ২৬ জানুয়ারি থেকে বন্ধ থাকে ১৩১ / ১৩২,১৩৫ / ১৩৮ ও ১৪১ / ১৪২ নম্বরধারী তিন জোড়া শাটল ট্রেন।

কিন্তু বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে গত ৩০ জানুয়ারি লোকো মাস্টাররা কর্মবিরতি স্থগিত করার পর থেকে সারাদেশের রেল চলাচল স্বাভাবিক হয়। তবে সারাদেশের রেল চলাচল স্বাভাবিক হলেও আটকে থাকা চবির ৩ জোড়া শাটল চালু হয়নি।

এ বিষয়ে গত ১১ ফেব্রুয়ারী রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান ক্যাম্পাস খুললে ট্রেন চলাচল পূর্বের মতো স্বাভাবিক হবে বলে চট্টগ্রাম খবরকে জানিয়েছিলেন। ওই সময় তিনি বলেছিলেন, আমাদের কিছু গার্ড সংকট আছে। তাছাড়া আগামী ২১ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারণে আমরা আপাতত শাটলগুলো বন্ধ রেখেছি। এ বিষয়ে প্রক্টরের স্যারের সাথে আমাদের কথা হয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললে শাটল আবারো আগের শিডিউলে চলবে।

কিন্তু ২২ ফেব্রুয়ারী বিশ্ববিদ্যালয়ের সশরীরে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হলেও চলতে দেখা যায়নি বন্ধ হওয়া শাটল। এ নিয়ে চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।

শিক্ষার্থীদের সাথে কথা জলে জানা গেছে, সশরীরে ক্লাস শুরু হওয়ার কারণে অনেক শিক্ষার্থীই এখন ক্যাম্পাসে যাতায়াত করবে। কিন্তু সকাল সাড়ে সাতটার শাটলটি বন্ধ থাকার কারণে আটটার ট্রেনে অত্যাধিক পরিমাণ গাদাগাদি করে আসতে হয়েছে। এমনকি অত্যাধিক গাদাগাদি হওয়ার কারণে অনেকেই শাটলে উঠতে পারেননি বলেও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

এ বিষয়ে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামানের সাথে পুনরায় কথা বললে তিনি বলেন, আমাদের রেলওয়ে গার্ডদের চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। চুক্তি নবায়নের জন্য আমরা কেন্দ্রীয় রেল ভবনে আবেদন করেছি। সেখান থেকে রাষ্ট্রপতির অনুমোদনের মাধ্যমে গার্ডদের চুক্তি নবায়ন হবে। গার্ডদের চুক্তি নবায়ন হলে শাটল চলাচল স্বাভাবিক হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর, ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া বলেন, শাটল না চলার বিষয়টি দুঃখজনক। আমরা রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে বিষয়টি দ্রুত সমাধান করার চেষ্টা করব।

আরও পড়ুন:
চালু হয়নি ৩ জোড়া শাটল, ভোগান্তিতে চবি শিক্ষার্থীরা

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm