চাইয়ো গুতো হাইবা, মডেল যখন গরু!

চট্টগ্রাম ক্যাটেল এক্সপো- ২০২২ এ র‍্যাম্প মাতালো গরু

0

চাইয়ো গুতা হাইবা। ন ঠেলিস, ন ঠেলিস, পরি যাইর আঞ্চলিক আওয়াজে বন্ধুদের সাথে দুষ্টুমিতে মেতে উঠেন চট্টগ্রাম ক্যাটেল শো-তে আগত তরুণ দর্শনার্থীরা। তাদের পদচারনায় মুখরিত ছিল চট্টগ্রাম আউটার স্টেডিয়াম প্রাঙ্গণ।

চট্টগ্রামের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তরুণদের আগমনে গরুর ফ্যাশন শো জমে উঠে। ভিন্নধর্মী এই আয়োজনে মডেল ছিল ‘গরু’ । র‍্যাম্পে বিশেষ ভঙ্গিতে এগিয়ে আসে মডেল গরু। মডেল চকলেট, বঙ্গবীর, বাহাদুরসহ অনেক মডেল গরু কাঁপিয়েছে র‍্যাম্প !

গরুর প্রতি যে চট্টগ্রামবাসীর বিশেষ আকর্ষণ আছে তা এই ক্যাটেল শো-তে প্রতিফলিত হয়েছে। মেলায় আগত অনেক দর্শনার্থী গরু পালনে উদ্বুদ্ধ হয়।

‘গোতাইল’ এগ্রোর আঞ্চলিক সংলাপের ব্র্যান্ডিং ক্যাটেল শো-তে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। যেমন- ন জুলাইচ মাথা গরম আছে, চাইয়ো গুতো হাইবা! ইত্যাদি সংলাপ ছিল দর্শনার্থীদের মুখে মুখে। এইরকম প্রতিটি এগ্রো ফার্ম ভিন্ন ভিন্ন নান্দনিক সাজে চটগ্রাম ক্যাটেল শো-কে অন্যন্য মাত্রা দিয়েছে। যে কারও জন্য তা অনুকরণীয়।

চাইয়ো গুতো হাইবা, মডেল যখন গরু! 1

সাধারণত এই ধরনের ক্যাটেল শো ইউরোপের বিভিন্ন দেশে হয়ে থাকে। চট্টগ্রামে গত শুক্রবার প্রথমবারের মত এই ধরনের আয়োজনের সাথে চট্টগ্রামবাসী পরিচিত হয়।

গত শুক্রবার সকালে প্রথবারের মতো চট্টগ্রামের আউটার স্টেডিয়ামে শুরু হয় চট্টগ্রাম ক্যাটেল এক্সপো। এ এক্সপো চলে রাত আবধি। লাখো মানুষের ভীড়ে মুখর ছিলো চট্টগ্রামের আউটার স্টেডিয়াম।

বিকেল ৪ টায় শুরু হয় গরুর ফ্যাশন শো। বিভিন্ন এগ্রো ফার্ম গরু নিয়ে প্রদর্শন করেছে। আর আম জনতা গরুর প্রদর্শনী দেখে বেশ উচ্ছ্বাসিত ভঙ্গিতে জানান দিল আনন্দের বার্তা।

চট্টগ্রাম আউটার স্টেডিয়াম মাঠে বালি দিয়ে ঢেকে তৈরি করা হয় গরু প্রদর্শণীর র‌্যাম্প। বাঁশের সীমানা রুখতে পারেনি গরুর ফ্যাশন শো দেখার মেলায় আগত জনতার উচ্ছ্বাস।

হাটাহাজীরীর ছেলে ইরফান চট্টগ্রাম খবরকে বলেন, গরু দেখতে আসছি। এতো দিন ফ্যাশন শো দেখছি মডেলদের। এবার ফ্যাশন শো দেখলাম গরুর। বুঝতাছেন পুরাই রক অবস্থা।

চট্টগ্রাম ক্যাটেল এক্সপো মেলায় ছিলো বঙ্গবীর, বাহাদুর, চকলেট,সহ বিভিন্ন নামের অসংখ্য গরু। মেলায় ৩২ টি ফার্ম তাদের নিজেদের সেরা দুটি গরু নিয়ে হাজির হয়। প্রতিটি গরুর ছিলো মাথায় তাজ, গলায়, কোমর ও পায়ে সাজ। উন্নত জাতের গরুর সংখ্যা ছিল প্রায় শতাধিক।

উৎসুক জনতা বঙ্গবীর, বাহাদুর, চকলেট এর সাথে সেলফি তুলতে মিস করেনি। চট্টগ্রামবাসী এ মেলাতে গরুর সাথে সেলফি তোলায়ও রেকর্ড করেছে।

মেলায় আগত রাকিবুল চট্টগ্রাম খবরকে বলেন, ‘চট্টগ্রামে এ ধরনের আয়োজন হবে ভাবিনি। এ আয়োজন আমার হৃদয় কেড়েছে। আমি জীবনে প্রথম এতা খুশি হলাম।

ইউটিউবার তৌহিদ আফ্রিদ্রিও এসেছে গরুর মেলা দেখতে। তৌহিদ আফ্রিদ্রি প্রবেশ করতেই হাজারো তরুণ ঘিরে ধরলো তাকে। সেখানেও চললো সেলফির তোলার ধুম। পুরো মেলার প্রান্ত জুড়ে হাঁটতে হয়েছে ভীড়ে ঠেলাঠেলি করে। ক্লান্তি যেনো ছোঁয় না কাউকে। বাঁধভাঙ্গা উচ্ছ্বাস ছড়িয়ে গেছে মেলা জুড়ে। করোনার ধাক্কা পেরিয়ে অনেক দিন পরে চট্টগ্রামবাসী এক সাথে সুখ উল্লাসে মেতে উঠে।

লাখো পুরুষের ভীড়ে নারীদের উপস্থিতি ছিলো উল্লেখযোগ্য। উপচে পড়া ভিড়েও মেলা অঙ্গনে ছিল তাদের পদচারনা ।

৩২ টি গরুরর ফার্ম ছাড়াও মেলায় প্রাণীদের স্বাস্থ্য সেবাই ছিলো এসি আই এনিম্যাল হেলথ ও রেনেটা। কনসার্ট শেষে র‌্যাফল ড্র এর মাধ্যমে মেলা শেষ হয়।

আনন্দ-বিনোদনে এগ্রো শিল্প গড় ! এই বার্তা দিল চট্টগ্রামের তরুণরা।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm