জসিম-ইন্দ্রজিৎকে নির্দোষ দাবী করে স্ত্রীদের সংবাদ সম্মেলন

0

পটিয়ায় ইফতার মাহফিলের ব্যানারে বর্তমান চেয়ারম্যানের নাম না থাকায় উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা জিতেন কান্তি গুহের ওপর হামলায় অভিযুক্ত, চেয়ারম্যান বিএম জসিমের সহযোগী ও গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত ফেরারি আসামি ইন্দ্রজিৎ লিও তার স্ত্রীকে দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করিয়েছেন।

মঙ্গলবার (১০ মে) চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে ইন্দ্রজিতের স্ত্রী সুর্বনা দাশ আহত জিতেনের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর উপহার বন্টনের অভিযোগ তুলেছেন। সংবাদ সম্মেলনে পাঠ করা লিখত বক্তব্যে তিনি মূলত আটক হওয়া চেয়ারমান জসিম ও পলাতক আসামি ইন্দ্রজিতকে নির্দোষ প্রমাণের চেষ্টা করেছেন।

লিখিত বক্তব্যে সুর্বনা দাশ বলেন, ‘হাইদগাঁও ইউনিয়নে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দরিদ্র মানুষের জন্য ৪০টি ঘর উপহার দিয়েছেন। এ ঘর বন্টনে দরিদ্র মানুষের কাছ থেকে ৫০ হাজার থেকে শুরু করে ১ লাখ টাকা পর্যন্ত নিয়েছেন। যারা টাকা দিতে পারেনি তাদের তালিকা থেকে বাদসহ বিভিন্ন হুমকি ধমকি প্রদান করেন এবং কৌশলে দরিদ্র মানুষের থেকে টাকা হাতিয়ে নেন। টাকা নেওয়ার একটি ভিডিও ভাইরাল হলে আ’লীগ নেতা জিতেনকে দলীয় পদ থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়। জিতেন পদ হারানোর পর থেকে এলাকায় জায়গা দখল থেকে শুরু কিশোরগ্যাং এর মাধ্যমে নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়েন।’

সুবর্না দাশ আরও বলেন, ‘গত ২৯ এপ্রিল একটি অনুষ্ঠানে জিতেনকে পেয়ে ক্ষুব্ধ লোকজন লাঞ্ছিত করেন। এ ঘটনার খবর পেয়ে ২০ মিনিট পর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বিএম জসিমসহ ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। পরর্বতীতে সুর্বনার স্বামী ইন্দ্রজিত চৌধুরী ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে জড়িয়ে থানায় একটি মিথ্যা মামলা দায়েন করেন। জিতেনের গুন্ডাবাহিনীর হাতে এলাকার লোকজন জিম্মি। কেউ প্রতিবাদ করলে তাদেরকে মিথ্যা মামলা, হুমকি ধমকি দেওয়া হয়।’

ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ও পটিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমনা সহ-সভাপতি জিতেন গুহকে দুর্নীতিবাজ আখ্যা দিয়ে সুবর্না দাশ বলেন, দুনীর্তিবাজ জিতেন গুহ সরকারি ঘর দেওয়ার কথা বলে মনজু দত্ত, বিজলী চৌধুরী, বাসু চৌধুরী, পার্থ চৌধুরী, রতন চৌধুরীর পরিবার থেকে বিভিন্ন অংকের অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন। জিতেনের এমন দুর্নীতির কথা দলের মধ্যে চাউর হলে তাকে দলীয় পদ থেকে অব্যহতিও দেওয়া হয়।

জসিম-ইন্দ্রজিৎকে নির্দোষ দাবী করে স্ত্রীদের সংবাদ সম্মেলন 1

মুলত টাকা ভাগাভাগি নিয়ে নিজেদের মধ্যে মারামারিকে ভিন্নখাতে নিতে আমার স্বামী ও স্থানীয় চেয়ারম্যান বিএম জসিমের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালিয়ে মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। আমার স্বামীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক মামলার পর তিনি পুলিশের ভয়ে পলাতক রয়েছেন। জিতেন ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী এলাকায় প্রতিদিন মহড়া দিচ্ছে। তারা আমার স্বামীকে পেলে হত্যা করবে বলে হুমকি দিচ্ছে। আমরা নিরাপত্তাহীনতাই ভোগছি।

সংবাদ সম্মেলনে সুর্বনা দাশের সাথে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিএম জসিমের স্ত্রী কানিজ ফাতেমা, চেয়ারম্যানের মা মজুনা বেগম, মেজবাহ উদ্দিন, ইমতিয়াজ উদ্দিন উপস্থিত ছিলেন।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা জিতেন গুহ বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর কে পাবে সেটা নির্ধারণের কোন প্রক্রিয়ার আমার সম্পৃক্ততা নেই। এটি শুধু অভিযোগ নয়, অপবাদ। আর তারা যদি হামলায় জড়িত না থাকে তাহলে পালিয়ে বেড়াচ্ছে কেন? চেয়ারম্যান পালাতে গিয়ে ছাদ পথে পড়েছেন। লিও পালিয়ে কেন বেড়াচ্ছে? থানা কিংবা আদালতে তো আত্মসমর্পন করতে পারে।

তিনি আরও বলেন, আমি ছাত্রলীগ, যুবলীগ করে আওয়ামী লীগে নেতৃত্ব দিয়েছি। দলের প্রতি অনুগত। আইনের শাসনে বিশ্বাসী। আমরা মামলা করেছি। আইন নিজস্ব গতিতে চলবে। তাদের সৎ সাহস থাকলে অপবাদ দিয়ে নয়, আইনীভাবে মোকাবিলা করার আহ্বান জানাই।

আরও পড়ুন:
পটিয়ার ঘটনা ন্যাক্কারজনক, দলে দূর্বৃত্তদের জায়গা নেই– তথ্যমন্ত্রী
আওয়ামী লীগ নেতাকে খুঁটিতে বেঁধে মারধরের মূলহোতা ইন্দ্রজিৎ এখনও অধরা
আওয়ামী লীগ নেতাকে পিটিয়ে রক্তাক্ত, পুত্রসহ চেয়ারম্যান গ্রেপ্তার

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm