জহুর হকার্স মার্কেট– গরীবের মার্কেটে ধনীদের বাজেট

0

মধ্যবিত্ত ও নিম্ন-মধ্যবিত্তের মার্কেট হিসেবে পরিচিত চট্টগ্রাম নগরীর ঐতিহ্যবাহী পৌর জহুর হকার্স মার্কেট। সময়ের ব্যবধানে এই মার্কেটের খ্যাতি দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও পৌঁছেছে। সেই সূত্রে বিভিন্ন সময় আন্তর্জাতিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে আসা বিদেশী খেলোয়াড় ও তাদের পরিবারের সদস্যদেরও দেখা গেছে এখান থেকে কেনাকাটা করতে।

জহুর হকার্স মার্কেটের শুধু জৌলুসই বাড়েনি, এই মার্কেটের স্ট্যান্ডার্ডও এখন গরীবের নাগালের বাইরে। ঈদ মৌসুমে শতকোটি টাকার বাজেট অতিক্রমে সেটা দুইশ কোটি টাকার আকার লাভ করেছে।

বৈশ্বিক করোনা মহামারীর কারণে গত দুটি মৌসুম ব্যবসায়ীদের সময় কেটেছে মন্দা। এই মার্কেটের ৮০২টি দোকানের ব্যবসায়ীরা এবার সেই মন্দা কাটিয়ে ভালো লাভের আশায় লগ্নি করেছেন প্রায় দুইশ কোটি টাকা।

বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের সাথে আলাপকালে ঈদকে সামনে রেখে তাদের বিনিয়োগের বিষয়ে নানান তথ্য জানিয়েছেন চট্টগ্রাম খবরকে।

জহুর হকার্স মার্কেটের নিচ তলার নিউ খাজা গার্মেন্টেসের পরিচালক মো. বাবু চট্টগ্রাম খবরকে বলেন, ‘আমার দোকানে পণ্য তোলা হয়ে গেছে। আমি ভারতীয় পণ্য তুলেছি। আমার দোকানে এ বছরের আকর্ষণ পাঞ্জাবি। আমি ঋণ ও ধার করে ৭০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছি।’

মেসার্স রনি গার্মেন্টেসের পরিচালক ম্যানেজার সহদেব পাল বলেন, আমার ঈদের মাল তোলা হয়ে গেছে। আমার এখানে সব ধরনের লেডিস আইটেম পাওয়া যাবে। আমি ধার-দেনা করে ৩০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছি। এবার ব্যবসা জমবে এ প্রত্যাশায় আছি।

খাজা ক্লথ স্টোরের পরিচালক গোলাম কাদের বলেন, গত দু’বছর ব্যবসা হয়নি। এ বছর শার্ট, গেঞ্জি, প্যান্ট, ট্রাউজার, থ্রি কোয়ার্টার ও বাচ্চাদের পোশাক পাওয়া যাবে। ঋণ ও ধার করে এবার ২০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছি।

সৈয়দ নুরুল হক স্টোরের ব্যবস্থাপক শাহাদাত হোসেন সারজিল বলেন, ‘ঈদ প্রস্তুতি ভালো। আমার এখানে ক্যাজুয়াল ও ফরমাল শার্ট পাওয়া যাবে। আমি লোন ও ধার-দেনা করে ১৫ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছি। এবার ব্যবসা ভালো হবে এ প্রত্যাশায় আছি।’

এস এম আউলিয়া স্টোরের পরিচালক এসকে দত্ত বলেন, এবার ঈদ প্রস্তুতি ভালো। আমার এখানে সব ধরনের খেলার সামগ্রী পাওয়া যায়। আমি এ ঈদে ১০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছি।

পৌর জহুর হকার্স মার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সচিব মো. আবু বক্কর রানা বলেন, ঈদ প্রস্ততি ভালো করে নিয়েছেন এই মার্কেটের ব্যবসায়ীরা। এবার বাজার জমবে আশা করছি। আমরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে পণ্য বিক্রয় করছি। এবার ক্রেতাদের নিরাপত্তায় পর্যাপ্ত পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিয়োজিত আছেন। ক্রেতারা নির্বিঘ্নে পণ্য কিনতে পারবে হকার্স মার্কেট থেকে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm