প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারে শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নিতে চাই– লায়ন এম.কে বাশার

0

বাঁশখালীর দরিদ্র পরিবারের সন্তান শাহেদ (ছদ্মনাম)। অভাবের তাড়নায় উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ে তার পড়ালেখাই বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। কিন্তু অদম্য শাহেদ জোগাড় করলেন মিষ্টি দোকানের একটা চাকরি। সেই টাকায় চালিয়ে নিলেন নিজের পড়ালেখার খরচ। আর সদ্য প্রকাশিত ২০২১ সালের এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে তিনিও কৃতিত্বের স্বাক্ষর রাখলেন।

ক্যামব্রিয়ান আয়োজিত সংবর্ধনা মঞ্চে অশ্রুসজল নয়নে শাহেদ বলছিলেন তার কষ্ট উৎরানোর গল্প। দর্শক সারি দুই হাজার শিক্ষার্থীর সাথে তাদের অভিভাবকরাও অশ্রুসজল। শাহেদের মতো আরও নয় জনের কষ্টের গল্প আছে, আছে পড়ালেখার পাশাপাশি নাচ-গান, আবৃত্তিসহ নানান প্রতিভা।

এরকম নয়জন শিক্ষার্থীর এইচএসসি পর্যায়ে বিনা খরচে পড়ালেখার দায়িত্ব নিলেন বিএসবি ক্যামব্রিয়ান এডুকেশন গ্রুপের চেয়ারম্যান লায়ন এম. কে বশার পিএমজেএফ। তিনি জানান- প্রতি বছর অদম্য শিক্ষার্থীদের বিনা-বেতন পড়ার সুযোগ দিয়ে থাকে ক্যামব্রিয়ান এডুকেশন গ্রুপ। আমরা এই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখেছি যেন দারিদ্র্যের কাছে অদম্য শিক্ষার্থীরা হেরে না যায়।

রোববার (৯ জানুয়ারি) সকাল ১০ টা থেকে তিনটি সেশনে দুই হাজার করে মোট ছয় হাজার শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দেয় ক্যামব্রিয়ান কলেজ। নগরীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টার মুখরিত ছিল এবার এসএসসি, দাখিল ও সমমানের পরীক্ষায় কৃতকার্য হওয়া শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে। স্বাস্থ্যবিধির বিষয়কে গুরুত্ব দিয়ে সম্পূর্ণ অনুষ্ঠানকে ৩ টি সেশনে ভাগ করা হয়। প্রতি সেশনে ২ হাজার শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দেয়া হয়। এভাবে মোট ৬ হাজার শিক্ষার্থীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা হয়।

সংবর্ধনায় শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে প্রধান অতিথি লায়ন এম কে বশার বলেন, বৃটিশরা বিশ্ব শাসন করেছে ঘোড়ায় চড়ে। কিন্তু আগামী বিশ্বকে নেতৃত্ব দিতে হবে প্রযুক্তির জ্ঞান দিয়ে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের উপযুক্ত হিসেবে নিজেকে গড়তে না পারলে টিকে থাকা যাবে না। তাই এখন থেকেই তোমাদের লক্ষ্য স্থির করে ধীরে ধীরে এগিয়ে যেতে হবে। ক্যামব্রিয়ান এডুকেশন গ্রুপ তথ্য প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার করে শিক্ষার্থীদের আগামী বিশ্ব ব্যবস্থায় নেতৃত্ব দেওয়া উপযুক্ত হিসেবে গড়তে চায়।

তিনি আরও বলেন, ২০০৫ সালে ক্যামব্রিয়ান কলেজ প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত ৭০ হাজার শিক্ষার্থীকে বিদেশে পড়াশোনা করার ব্যবস্থা করে দিয়েছে। যারা বিশ্বের প্রথম সারির বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করেছে।

প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারে শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নিতে চাই– লায়ন এম.কে বাশার 1
বক্তব্য রাখছেন ক্যামব্রিয়ান কলেজ চট্টগ্রামের অধ্যক্ষ লায়ন মাহবুব হাসান লিংকন

ক্যামব্রিয়ান কলেজ চট্টগ্রাম ক্যাম্পাসের অধ্যক্ষ এবং বিএসবি ক্যামব্রিয়ান এডুকেশন গ্রুপের পরিচালক লায়ন মাহবুব হাসান লিংকন বলেন, আমাদের মা-বাবা অনেক কষ্টে আমাদের লালন-পালন করেছেন। তোমরা কখনো মা-বাবার মনে কষ্ট দিবে না। কিংবা তাঁরা কষ্ট পান এমন কাজও করবে না। পড়াশোনায় মনোযোগী হয়ে মা-বাবার মুখ উজ্জ্বল করবে। কারণ তোমরা শুধু একা স্বপ্ন দেখনা। তোমাদেরকে ঘিরে তোমাদের মা-বাবার স্বপ্নও বুনা থাকে।

প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারে শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নিতে চাই– লায়ন এম.কে বাশার 2
শিক্ষার্থীদের বরণ করে নিচ্ছেন ক্যামব্রিয়ান কলেজ চট্টগ্রামের সহযোগী অধ্যাপক লায়লা নুর

অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীরা স্বাস্থ্যবিধি মেনে সুশৃংখলভাবে স্বংবর্ধনার আয়োজন করায় ক্যামব্রিয়ান কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে দেশের পাঁচটি শিক্ষা বোর্ডের অধীন ১৩টি ক্যাম্পাসে ক্যামব্রিয়ান কলেজের পাঠদান অব্যাহত আছে। ২০১৪ সালে চট্টগ্রামে ক্যামব্রিয়ারে পথ চলা শুরু। রাজধানী ঢাকার মতো চট্টগ্রামের হালিশহরেও রয়েছে ক্যামব্রিয়ানের ডিজিটাল ক্যাম্পাস। চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডের অধীনে চট্টগ্রাম ক্যামব্রিয়ান কলেজ ফলাফলের দিক থেকে এই বোর্ডের অন্যতম শীর্ষ কলেজ।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm