বঙ্গবন্ধুর হত্যার পরিপূর্ণ বিচার এখনো হয়নি—শ্যামল দত্ত

জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক ভোরের কাগজ সম্পাদক শ্যামল দত্ত বলেছেন, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার এখনও সম্পূর্ণ হয়নি। কেবল জড়িত কয়েকজনের বিচার হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর হত্যার পরিপূর্ণ বিচার এবং এ হত্যাকান্ডের প্রকৃত ইতিহাস উম্মোচন না হওয়া পর্যন্ত বাঙালি জাতির পাপমোচন হবে না। আমাদের প্রত্যাশা থাকবে সরকার এ ব্যাপারে কমিশন গঠন করবে। কমিশন গঠনের মাধ্যমে দেশি-বিদেশি ষড়যন্ত্রকারী এবং জড়িতদের চিহ্নিত করে তাদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।

সোমবার (১৪ আগস্ট) চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সভাপতি সালাহ্উদ্দিন মো. রেজার সভাপতিত্বে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে আয়োজিত আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক দেবদুলাল ভৌমিক।

ক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক শহীদুল্লাহ শাহরিয়ারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সহ সভাপতি চৌধুরী ফরিদ, সাবেক সভাপতি আলী আব্বাস, সাংবাদিক মোস্তাক আহমেদ, রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, ওমর কায়সার, এম. নাসিরুল হক, আসিফ সিরাজ ও ডেইজী মওদুদ।

শ্যামল দত্ত আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যার সাথে কয়েকটি পক্ষ রয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে দেশি-বিদেশি চক্র এবং এ দেশের রাজনৈতিক গোষ্ঠী ও ব্যক্তিরা। বঙ্গবন্ধু হত্যার অন্যতম কারণ ’৭২ এর সংবিধান। বাংলাদেশ এখনো মুক্তিযুদ্ধের মূল চেতনায় ফিরে আসতে পারেনি। আমাদের সংবিধানও ’৭২ এর সংবিধান নয়। বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী হিসেবে যাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে তারা মাঠ পর্যায়ের স্বঘোষিত ঘাতক। বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলায় হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী, প্রশ্রয় ও মদদদানকারী, হত্যার বেনিফিসিয়ারিরা এখনো পর্দার আড়ালেই থেকে গেছে।

তিনি বলেন—বীর প্রসবিনী চট্টগ্রাম বঙ্গবন্ধুর অত্যন্ত প্রিয় এবং বিশ্বস্ত একটি জায়গা। মাস্টার দা ও প্রীতিলতার বুনা বিপ্লবের বীজ বঙ্গবন্ধুর মাধ্যমে বটবৃক্ষে পরিণত হয়। যেকোনো আন্দোলন সংগ্রাম চট্টগ্রাম থেকেই তিনি সূচনা করেছেন। চট্টগ্রামকে ঘিরে রয়েছে তাঁর অসংখ্য স্মৃতি। তিনি বলতেন, ‘তোরা দেখিস, যেদিন আমার চট্টগ্রাম জাগবে সেদিনই আমার বাঙালি জাগবে,..।’

বঙ্গবন্ধুর হত্যার পরিপূর্ণ বিচার এখনো হয়নি—শ্যামল দত্ত 1

সভাপতির বক্তব্যে সালাহ্উদ্দিন মো. রেজা বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লক্ষ্য ছিল শোষণ ও বৈষম্যহীন দেশ এবং সোনার বাংলা গড়ে তোলা। তাঁর আদর্শ ও দর্শন বাস্তবায়নের মাধ্যমে সমৃদ্ধ দেশ গড়া সম্ভব।

সাধারণ সম্পাদ দেবদুলাল ভৌমিক স্বাগত বক্তব্যে বলেন- বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ একই সূত্রে গাঁথা। এ দেশে যখন যে সরকারই থাকুক, বঙ্গবন্ধুর প্রশ্নে কোন দ্বিমত হতে পারে না।

অনুষ্ঠানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ আগস্ট শহীদদের স্মরণে ১ মিনিট দাঁড়িয়ে নীরবতা পালন করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সহ সভাপতি মনজুর কাদের মনজু, অর্থ সম্পাদক রাশেদ মাহমুদ, ক্রীড়া সম্পাদক এম. সরওয়ারুল আলম সোহেল, গ্রন্থাগার সম্পাদক আহমেদ কুতুব, সমাজসেবা ও আপ্যায়ন সম্পাদক আল রাহমান, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক খোরশেদুল আলম শামীম, কার্যকরী সদস্য মো. আইয়ুব আলী ও মঞ্জুরুল আলম মঞ্জু’সহ বিভিন্ন প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিক।

১৫ আগস্ট মঙ্গলবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৮ তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসে বেলা ১১টায় প্রেস ক্লাবের সামনে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হবে।
এরপর ক্লাবের পিএইচপি ভিআইপি লাউঞ্জে অনুষ্ঠিত হবে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল। উক্ত অনুষ্ঠানে প্রেস ক্লাবের সদস্যদের উপস্থিত থাকার জন্য চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সভাপতি সালাহ্উদ্দিন মো. রেজা এবং সাধারণ সম্পাদক দেবদুলাল ভৌমিক অনুরোধ জানিয়েছেন

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।