ম্যাজিস্ট্রেট মামুনের নেতৃত্বে প্রশাসনের কড়া নজরদারী, ফটিকছড়িতে শঙ্কামুক্ত ভোট গ্রহণ সম্পন্ন

দেশের একাধিক জেলার চেয়ে আয়তনে বড় ফটিকছড়ি উপজেলাকে এক সময় বলা হতো—‘মৃত্যু উপত্যকা’। সন্ত্রাসের জনপদ সেই ফটিকছড়ি ধীরে ধীরে তার বদনাম ঘুছিয়েছে। দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে অনেকেই সংঘাত, সংঘর্ষ কিংবা হতা-হতের শঙ্কা প্রকাশ করলেও একেবারেই নীরবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হলো চট্টগ্রাম-২ তথা ফটিকছড়ি আসনে।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুনের নেতৃত্বে পুলিশ,বিজিবিসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের পরিশ্রম এবং কড়া নজরদারির কারণে নারায়ণহাট, ভুজপুর, হারুয়ালছড়িতে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। পুরো ফটিকছড়িতে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীদের টুকটাক অভিযোগ থাকলেও ইউএনও, এসিল্যান্ডসহ অন্যান্য কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপে ভোট গ্রহণ কোনো রকম সমস্য ছাড়াই সম্পন্ন হয়েছে।

রোববার (৭ জানুয়ারি) ফটিকছড়ির নারায়ণহাট, ভুজপুর, হারুয়ালছড়িসহ বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে শান্তিপূর্ণ নির্বাচনের দৃশ্য। যদিও সকালের চেয়ে বেলা বাড়ার সাথে সাথে কমেছে ভোটারদের সংখ্যা।

উপজেলার নারায়াণহাটস্থ জুলখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে ভোটকেন্দ্রের বাইরে দাঁড়িয়ে আছেন মানুষজন। সকাল থেকে দুপুরের কিছুক্ষণ পর পর্যন্ত ভোটারের উপস্থিতি থাকলেও এরপর সবাই ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা যায়। যদিও আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতি টের পেয়ে সবাই ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।
ম্যাজিস্ট্রেট মামুনের নেতৃত্বে প্রশাসনের কড়া নজরদারী, ফটিকছড়িতে শঙ্কামুক্ত ভোট গ্রহণ সম্পন্ন 1

স্থানীয় ভোটারদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, এই আসনে বেশ কয়েকজন প্রার্থী থাকলেও লড়াই হচ্ছে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য খাদিজাতুল আনোয়ার সনি (নৌকা) ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা হোসাইন মো. আবু তৈয়বের (তরমুজ) মধ্যে।

নির্বাচনপূর্ব রাত থেকেই উপজেলার বিভিন্ন সড়কে অভিযান চালান সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল মামুন। নির্বাচনী আচরণবিধি রক্ষায় তার কড়া নজরদারির কারণেই মূলত কেউ কোনো রকম বিশৃংখলা সৃষ্টির সুযোগ পায়নি।
ম্যাজিস্ট্রেট মামুনের নেতৃত্বে প্রশাসনের কড়া নজরদারী, ফটিকছড়িতে শঙ্কামুক্ত ভোট গ্রহণ সম্পন্ন 2

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম-২ ফটিকছড়ি উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন এবং ফটিকছড়ি ও নাজিরহাট পৌরসভা নিয়ে গঠিত এ আসনের মোট ভোটার ৪ লাখ ৫৬ হাজার ৪৮৭ জন।
এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য খাদিজাতুল আনোয়ার সনি (নৌকা), স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা হোসাইন মো. আবু তৈয়ব (তরমুজ), স্বতন্ত্র প্রার্থী আরেক আওয়ামী লীগ নেতা মো. শাহজাহান (ঈগল), বাংলাদেশ সুপ্রীম পার্টির চেয়ারম্যান সৈয়দ সাইফুদ্দিন আহমদ মাইজভান্ডারী (একতারা), বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী (ফুলের মালা), জাতীয় পার্টির মোহাম্মদ শফিউল আজম চৌধুরী (লাঙল), ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের মীর মুহাম্মদ ফেরদৌস আলম (চেয়ার) ও বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের মুহাম্মদ হামিদ উল্লাহ (মোমবাতি)।

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।