রোহিঙ্গা সংকট উত্তরণে তুরস্ক বাংলাদেশের পাশে থাকবে: সোলাইমান

0

রোহিঙ্গা সংকট থেকে উত্তরণে তুরস্কের জনগণ সবসময় বাংলাদেশের পাশে আছে বলে মন্তব্য করেছেন তুর্কি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সোলাইমান সয়লু।

শনিবার (৮ জানুয়ারি) সকালে কক্সবাজারের উখিয়ার বালুখালী ৯ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে তুরস্ক সরকারের দুর্যোগ ও জরুরি ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ (আফাদ) পরিচালিত ৫০ শয্যার তুর্কি ফিল্ড হাসপাতালের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন।

সোলাইমান সয়লু বলেন, ২০১৭ সাল থেকেই রোহিঙ্গা ভাই-বোনদের মানবিক সহায়তা দিয়ে আসছে তুরস্ক। সংকট সমাধান না হওয়া পর্যন্ত ভবিষ্যতেও আমাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে।

রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ায় তুরস্কের জনগণের পক্ষে ধন্যবাদ দেওয়ার পাশাপাশি সুন্দর ক্যাম্প ব্যবস্থাপনার জন্য বাংলাদেশ সরকারের ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি। অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান বক্তব্য রাখেন।

পরে তুরস্কের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী একই এলাকায় অগ্নিকাণ্ডে আশ্রয়হারা রোহিঙ্গাদের জন্য নির্মাণাধীন অস্থায়ী আশ্রয় কেন্দ্র পরিদর্শনে যান। এ সময় তিনি রোহিঙ্গা শিশু-কিশোরদের সঙ্গে কিছুটা সময় খেলায় মাতেন। এ ছাড়া দোভাষীর সহায়তায় বিভিন্ন বয়সের মানুষের সঙ্গে কথা বলেন।

এর পর ১৭ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পে তুর্কি রেড ক্রিসেন্টের স্বাস্থ্য সেবা কার্যক্রম, দিয়ানাত ফাউন্ডেশন পরিচালিত রোহিঙ্গা দ্বারা সাবান তৈরির কারখানা, খিলজাই নামে একটি সংস্থার লার্নিং সেন্টারের শিক্ষা কার্যক্রম পর্যবেক্ষণসহ বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শন করেন।

এ সময় তুরস্কের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী ইসমাইল ছাতাকলু, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী খালিল বল দামির, তুরস্কের দুজন সংসদ সদস্য, বাংলাদেশে নিযুক্ত তুরস্কের রাষ্ট্রদূত মোস্তফা ওসমান তুরান, চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার কামরুল হাসান, ডিআইজি আনোয়ার হোসেন, শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার শাহ রেজওয়ান হায়াত, জেলা প্রশাসক মামুনুর রশীদ ও পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে শনিবার সকাল ৮টায় তুরস্কের ২০ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল নিয়ে বিশেষ বিমানে ইস্তান্বুল থেকে সরাসরি কক্সবাজার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান সোলাইমান সয়লু।

ক্যাম্প পরিদর্শন শেষে দুপুরে বিশেষ বিমানযোগে ঢাকার উদ্দেশে রওয়ানা হন সোলাইমান সয়লু। ঢাকায় পৌঁছেও দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের মিলিত হন তুরস্কের মন্ত্রী ও তার সফর সঙ্গীরা।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm