শাটল চালুর দাবিতে চবি শিক্ষার্থীদের অবরোধ, আশ্বাসে প্রত্যাহার

0

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) শাটল ট্রেনের পূর্ণ শিডিউল চালুর দাবিতে মূল ফটক অবরোধ করে আন্দোলন করেছে শিক্ষার্থীরা।

রোববার (২৭ ফেব্রুয়ারী) দুপুর থেকে আন্দোলন করে শিক্ষার্থীরা। এসময় শিক্ষার্থীরা বন্ধ হওয়া ৩ জোড়া শাটল চালুর দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেন। দুপুর দেড়টা থেকে শুরু হয়ে ঘন্টাব্যাপী চলে এই অবরোধ। পরবর্তীতে প্রক্টরের আশ্বাসের ভিত্তিতে অবরোধ তুলে নেয় শিক্ষার্থীরা।

শাটল চালুর দাবিতে চবি শিক্ষার্থীদের অবরোধ, আশ্বাসে প্রত্যাহার 1

আন্দলোনরত শিক্ষার্থীরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ জোড়া শাটল বন্ধ আছে। সশরীরে ক্লাস চালু হলেও এখনো সবগুলো শাটল চালু হয় নাই। ফলে সাধারণ শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে দুঃসহ ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে। এখন আমাদের দাবি হচ্ছে অতিসত্বর এই বন্ধ শাটলগুলো চালু করতে হবে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভূঁইয়া চট্টগ্রাম খবরকে বলেন, আমরা রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে বারবার কথা বলছি। উনারা বারবার আশ্বস্ত করার পরেও শাটল চালু করছে না। আমরা চেষ্টা করছি পুনরায় সবগুলো শাটল চালু করার।

শাটল যতদিন চালু হবে না ততদিন বিকল্প হিসেবে বাস সার্ভিস চালুর ব্যবস্থা করবেন বলে জানান প্রক্টর ড. রবিউল হাসান।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ জানুয়ারি থেকে মাইলেজ ইস্যুতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে চলাচল করা সাত জোড়া ট্রেনের মধ্যে তিন জোড়া শাটল ট্রেন অনির্দিষ্টকালের জন্য না চালানোর সিদ্ধান্ত নেয় লোকো মাস্টাররা।

এর প্রেক্ষিতে ২৬ জানুয়ারি থেকে বন্ধ থাকে ১৩১ / ১৩২,১৩৫ / ১৩৮ ও ১৪১ / ১৪২ নম্বরধারী তিন জোড়া শাটল ট্রেন।
কিন্তু বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে গত ৩০ জানুয়ারি লোকো মাস্টাররা কর্মবিরতি স্থগিত করার পর থেকে সারাদেশের রেল চলাচল স্বাভাবিক হলেও এখনো পর্যন্ত আটকে আছে বন্ধ হওয়া চবির তিন জোড়া শটল।

আরও পড়ুন:
চবি খুললেও চালু হয়নি ৩ জোড়া শাটল

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm