সমুদ্রে ভাসতে থাকা সেই নৌকা থেকে ১৮৫ রোহিঙ্গা উদ্ধার

0

ইন্দোনেশিয়ার উপকূলে ভেসে আসা নৌকা থেকে ১৮৫ রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয় সময় সোমবার বিকেলে তাদের উদ্ধার করা হয়। কর্তৃপক্ষের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপির প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, এ নিয়ে সম্প্রতি চারটি রোহিঙ্গাবাহী নৌকা ইন্দোনেশিয়ার উপকূলে পৌঁছাল। স্থানীয় পুলিশের মুখপাত্র উইনার্দি বলেন, কাঠের নৌকাটি সোমবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে আচেহ প্রদেশের পিদি জেলার উপকূলে এসে পৌঁছায়। সেখানে ৮৩ প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ, ৭০ নারী ও ৩২ শিশু ছিল।

উইনার্দি জানান, নৌকায় থাকা রোহিঙ্গাদের অস্থায়ী আশ্রয় কেন্দ্রে রাখা হয়েছে। যারা অসুস্থ তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

এএফপি জানায়, কিছু রোহিঙ্গাকে খুবই দুর্বল অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। একজন স্বাস্থ্যকর্মী এএফপিকে বলেন, বেশ কয়েকজন পানিশূন্যতায় ভুগছেন; কয়েকজনের বমি হয়েছে।

উদ্ধার হওয়াদের মধ্যে ১৪ বছরের উমর ফারুক বলে, ‘আমরা বাংলাদেশের একটি রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির থেকে এসেছি এই আশায় যে, ইন্দোনেশিয়া আমাদের শিক্ষার সুযোগ দেবে।’

স্থানীয় জেলে সম্প্রদায়ের নেতা মারফিয়ান বলেন, ‘রোহিঙ্গারা উপকূলে আসার পরই স্থানীয় তাদের খাবার দিয়ে সহায়তা করে।’

এর আগে সমুদ্রে ভাসতে থাকা এসব রোহিঙ্গা নৌকা ডুবে মারা যেতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছিল জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা ইউএনএইচসিআর।

এক মাস সমুদ্রে থাকার পর সম্প্রতি ৫৭ রোহিঙ্গা নিয়ে আরেকটি নৌকা আচেহ প্রদেশে এসে পৌঁছায়। গত মাসেও এ প্রদেশে দুটি নৌকা থেকে ২২৯ রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করা হয় বলে জানায় ইউএনএইচসিআর।

২০১৮ সালে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর দমন-নিপীড়নের শিকার হয়ে সাত লাখ ৩০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশ আসে।

মিয়ানমারে সহিংসতা এবং বাংলাদেশ শিবিরে অস্বস্তি থেকে মুক্তি পেতে প্রতি বছর অনেক রোহিঙ্গা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সমুদ্র পাড়ি দিয়ে মালয়েশিয়া যাওয়ার চেষ্টা করেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm