সাত কোটি টাকার ইয়াবা নিয়ে র‌্যাবের জালে ৩ মাদক পাচারকারী

0

কক্সবাজারের উখিয়া থেকে দুই লাখ ৩৮ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করেছে র‌্যাব-৭। এ সময় ইয়াবা সম্রাট আলমগীর ও তার দুই সহযোগী মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়।

উদ্ধারকৃত ইয়াবার আনুমানিক মূল্য প্রায় সাত কোটি টাকা। রবিবার (২৫ সেপ্টেম্বর) রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন- উখিয়ার জালিয়াপালং ইউনিয়নের মৃত ফরিদ আলমের পুত্র ইয়াবা সম্রাট মো. আলমগীর (৩০), আঞ্জুমান পারার আলী মিয়ার পুত্র নজরুল ইসলাম মিয়া (২৬) ও পশ্চিম পালংখালীর আবদুল গফুরের পুত্র মুক্তার আহমেদ (৪২)।

আজ সোমবার র‌্যাব-৭ এর সিনিয়র সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মো. নুরুল আবছার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গোপন তথ্যের ভিত্তিতে জানা যায়, কতিপয় মাদক ব্যবসায়ী কক্সবাজার জেলার উখিয়া থানাধীন বালুখালী ছড়া ব্রীজ সংলগ্ন কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়কের পাকা রাস্তার উপর মাদকদ্রব্য ক্রয়-বিক্রয়ের উদ্দেশ্যে অবস্থান করছে।

উক্ত তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাবের একটি আভিযানিক দল বর্ণিত স্থানে অভিযান পরিচালনা করে ৩জনকে গ্রেফতার করে। পরবর্তীতে আসামিদের দেখানো ও নিজ হাতে বের করে দেয়া ৩টি বস্তার ভিতর প্লাস্টিক, রাবার ও পেপার দ্বারা মোড়ানো অবস্থায় মোট দুই লাখ ৩৮ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।

তিনি বলেন, আসামিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, মো. আলমগীরের সাথে পার্শ্ববর্তী দেশ মিয়ানমারের বড় বড় ইয়াবা ব্যবসায়ীদের পরিচয়ের সূত্র ধরে ইয়াবা ব্যবসায় পুঁজি বিনিয়োগ করে তার একটি সিন্ডিকেট তৈরি হয়।

পরবর্তীতে তার ঐ সিন্ডিকেট সদস্যদের মাধ্যমে উখিয়া থানাধীন পালংখালী ইউপির বালুখালী এলাকার কিছু রাস্তা ব্যবহার করে ইয়াবা ট্যাবলেটের বড় চালান তার ও তার সহযোগীদের বসতবাড়িতে মাটিতে গর্ত করে পুঁতে রেখে তা ছোট ছোট চালান আকারে সরবরাহ করে থাকে। সরবরাহ কাজে আসামি নজরল মিয়া ও মুক্তারসহ তার সিন্ডিকেটের অন্যান্য আরও সদস্যরা সহযোগিতা করে থাকে।

গ্রেফতার আসামি এবং উদ্ধারকৃত মাদকদ্রব্য সংক্রান্তে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের নিমিত্তে সংশ্লিষ্ট থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm