হাফেজ জুনায়েদের মরদেহ পড়েছিল বন্ধুদের বাথ রুমে!

পটিয়া মাদ্রাসার শিক্ষার্থী হাফেজ জুনায়েদের অর্ধগলিত মরদেহ উদ্ধার করেছে সিএমপির বায়েজিদ থানা পুলিশ। গত ১ এপ্রিল রাত থেকে জুনায়েদ নিখোঁজ ছিল। তবে এ বিষয়ে পরিবার পুলিশকেও কিছু জানায়নি।

বৃহস্পতিবার (৪ এপ্রিল) দুপুরে জুনায়েদের লাশ উদ্ধারের বিষয়টি চট্টগ্রাম খবরকে নিশ্চিত করেন সিএমপির উত্তর জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার পঙ্কজ দত্ত। তিনি বলেন, গতরাতে ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে আমাদের বায়েজিদ থানার টিম গিয়ে বাথ রুম থেকে জুনায়েদের মরদেহ উদ্ধার করেছে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য আমরা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছি। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে।

এক প্রশ্নের জবাবে পুলিশ সুপার পঙ্কজ দত্ত বলেন, যে বাসা থেকে তার লাশ আমরা উদ্ধার করেছি সেটিতে তার বন্ধুরা থাকতো। পাশেই জুনায়েদের মা-সহ পরিবারের অন্য সদস্যরা থাকে। গত রাতে ওই বাসায় এক বন্ধু প্রবেশ করে বাথরুম থেকে গন্ধ পেয়ে তিনি ৯৯৯-এ ফোন করেছিলেন।

বায়েজিদ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সুজন কুমার দে বলেন, জুনায়েদের গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের মিরসরাই উপজেলায়। জুনায়েদ এবং তার ছোট ভাইকে নিয়ে তার মা হাজিরপুলেই বসবাস করছেন। জুনায়েদ পটিয়া মাদ্রাসায় পড়ালেখা করতো। তার পিতা আবু জাফর বিদেশ থাকেন।

মন্তব্য নেওয়া বন্ধ।