মুক্তিযোদ্ধারা পেলেন বীর নিবাস

0

‘বাড়ির সামনে নামফলক। নামফলকে লেখা ‘বীর নিবাস’। অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ ও প্রয়াত বীরদের পরিবারের সদস্যদের জন্য ‘বীর নিবাস’ নামের এই আবাসন প্রকল্পের অধীনে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের এই প্রকল্পের আওতায় চট্টগ্রামের আনোয়ারায় নির্মিত হচ্ছে ৩৬টি বীর নিবাস।’ সোমবার দুপুরে আনোয়ারা উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজিত বীর নিবাস চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. ইশতিয়াক ইমন অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধা, শহীদ ও প্রয়াত যুদ্ধ বীরদের পরিবারের সদস্যদের হাতে ঘরের চাবি তুলে দেন।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যাপক এমএ মান্নান চৌধুরী, উপজেলা প্রকল্প বাস্তাবায়ন কর্মকর্তা আবু নাছের, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার আবদুল মান্নান ও বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম। এসময় আনোয়ারা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান অসীম কুমার দেব, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমজান আলী, মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা ফেরদৌস হোসেন, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা রেজাউল করিম, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী প্রিয়াংকা চাকমা, প্রকৌশলী মোহাম্মদ সায়েম, ঠিকাদার মো. রাশেদুল ইসলামসহ উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা।

প্রতিটি বীর নিবাস নির্মাণের ব্যায় হয়েছে ১৩ লাখ ৪৩ হাজার ৬১৮ টাকা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসাবে প্রথম পর্যায়ে আনোয়ারার ৬জন বীর মুক্তিযোদ্ধার পরিবারকে বীর নিবাস হস্তান্তর করা হয়েছে। উপকারভোগী মুক্তিযোদ্ধা সংসদের ভারপ্রাপ্ত কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মান্নান, মুক্তিযোদ্ধা হাবি মদন আলীর স্ত্রী ছেনোয়ারা বেগম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নুরুল আমিনের স্ত্রী ছানোয়ারা বেগম, মো. ইউচুপ, প্রণব কুমার সেন ও এস.এম নুরুল আমিন।

উপকারভোগী বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল মান্নান বলেন, ‘বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আবাসন সংকটে সমাধানে এগিয়ে আসায় প্রধানমন্ত্রী আমাদের বিরল সম্মানে ভূষিত করেছেন। ঈদের আগে স্বাধীনতার ৫২ বছর পর বীর নিবাস পেয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।’

উপজেলা প্রকল্প বাস্তাবায়ন কর্মকর্তা আবু নাছের বলেন, আনোয়ারা উপজেলায় দুই দফায় ৩৬টি বীর নিবাস নির্মাণের কাজ চলছে। এরমধ্যে প্রথম পর্যায়ে ৬টি ঘর হস্তান্তর করা হয়েছে। নির্মিত বীর নিবাসের কাজ শেষ হলে বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের মাঝে চাবি হস্তান্তর করা হবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।