আনোয়ারায় ঘর পাবেন আরও ১৩০ গৃহহীন পরিবার

0

চট্টগ্রামের আনোয়ারায় নতুন করে আরও ১৩০ ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ঘর উপহার দিচ্ছে সরকার। উপজেলা প্রশাসনের তালিকার ভিত্তিতে গৃহহীন মানুষকে এসব ঘর দেওয়া হবে। ২ শতক জমিতে প্রতিটি ঘর নির্মাণে খরচ হবে ২ লাখ ৫৯ হাজার টাকা। এছাড়া ১৩০ গৃহহীন পরিবারের জন্য ২৬০ শতক জমিতে নির্মিত হচ্ছে পাকা ঘর।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে সারা দেশের ন্যায় ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ঘর দেওয়ার প্রতিশ্রুতি রয়েছে বর্তমান সরকারের। প্রথম দফায় গত বছরের ২৩ জানুয়ারি ২৫ পরিবারকে ঘর হস্তান্তর করা হয়। দ্বিতীয় দফায় গত মে মাসে আরও ৪০ পরিবারকে ঘর উপহার দেয়া হয়। এখন পর্যন্ত দুই দফায় ৬৫ পরিবারকে ঘর দিয়েছে সরকার। তৃতীয় দফায় আগামী জুনের মধ্যে আরও ১৩০ পরিবারকে ঘর হস্তান্তরের কথা রয়েছে। আনোয়ারায় এখন সেসব ঘর নির্মাণের কাজ চলছে।

বুধবার (৩০ মার্চ) সকালে উপজেলার বটতলী ইউনিয়নের গুচ্ছ গ্রাম এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, ২৬০ শতক জমিতে প্রস্তত হচ্ছে গৃহহীনদের জন্য ঘর। শ্রমিককেরা ঘর নির্মাণের কাজ করছে।

উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, সারাদেশের মতো মুজিববর্ষে ভূমিহীন ও গৃহহীনদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের অংশ হিসেবে ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী জাবেদ এমপির প্রচেষ্ঠায় উপজেলার ভূমি ও গৃহহীনদের জন্য ৬০০ ঘরের বরাদ্দ পাওয়া গেছে। প্রতিটি ঘরে দুইটি বেড রুম, রান্নাঘর, টয়লেট ও একটি বারান্দা নিয়ে ঘর ও আশপাশের জমি মিলিয়ে দুই শতক জমি দেওয়া হবে প্রতিটি পরিবারকে। প্রতিটি ঘর নির্মাণে আগে ব্যয় ছিল ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। এখন তা বাড়িয়ে ২ লাখ ৫৯ হাজার টাকা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জামিরুল ইসলাম বলেন, একক গৃহ নির্মাণের নকশায় কিছুটা পরিবর্তন আনা হয়েছে। প্রতিটি ঘর নির্মাণে আগে ব্যয় ছিল ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। এখন তা বাড়িয়ে ২ লাখ ৫৯ হাজার টাকা করা হচ্ছে। ২০২২ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পের কাজ পুরোপুরি শেষ করা হবে।

তিনি আরও বলেন, প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ে উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের নির্মিত ঘর গুলো সুবিধাভোগীদের বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাকা ঘর পেয়ে মহাখুশি উপজেলার ভূমিহীন ও স্বল্প জমির মালিক অতিদরিদ্র মানুষরা।

ঘরগুলো উপকূলের গৃহহীনরা ও বঙ্গবন্ধু টানেলের কারণে গৃহহীন হয়ে পড়া পরিবারগুলোকে অগ্রাধিকার দেওয়া হবে বলে জানা গেছে। ‘আশ্রয়নের অধিকার, প্রধানমন্ত্রীর উপহার,’ এ স্লোগানকে সামনে রেখে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে উপজেলার ১১টি ইউনিয়নে দুই দফায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শেখ জোবায়ের আহমেদ ও প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার (পিআইও) জামিরুল ইসলামের তত্ত্বাবধানে এসব পাকা ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে।

আনোয়ারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ জোবায়ের আহমেদ জানান, দ্রুত সময়ের মধ্যে মুজিববর্ষে প্রধানমন্ত্রীর উপহার ঘরগুলো নির্মাণ সম্পন্ন করে সুবিধাভোগীদের মাঝে বুঝিয়ে দেওয়া হবে।

এমএফ

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রকাশিত হবে না।

ksrm